যশোরে বুধবার যাদের করোনা শনাক্ত হলো

আপডেট: 10:14:36 01/07/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে আজ যে ১১০টি নমুনা পরীক্ষা করে যে নতুন ৪২ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে যশোর সদরে ১৬ জন, মণিরামপুর উপজেলায় একজন, শার্শা উপজেলার দশজন, অভয়নগর উপজেলার ছয়জন, ঝিকরগাছা উপজেলার ছয়জন এবং চৌগাছা উপজেলার তিনজন রয়েছেন।
তারা হলেন, সদর উপজেলার ৩৭ ও ৫৩ বছর বয়সী দুই পুরুষ, যশোরের পুলিশ সদস্য ও পুলিশ লাইন ব্যারাকের ২৬ বছরের এক বাসিন্দা, লোন অফিসপাড়ার ৪০, ঝুমঝুমপুর এলাকার ৪০, পালবাড়ি এলাকার ৪০ ও ৪৮ বছর বয়সী পুরুষ। ঘোপ জেল রোড এলাকার ৫৫, নীলগঞ্জের ৫২ বছর বয়সী দুই পুরুষ, আরএন রোডের ৩৮ বছর বয়সী এক নারী, বারীনগর গ্রামের বাসিন্দা ৪৫ বছর বয়সী এক পুরুষ রয়েছেন। রয়েছেন বিভিন্ন এলাকার ২৩ বছরের এক যুবতী, ২০ বছরের এক তরুণ, ৪০ বছরের এক পুরুষ, এক ষোড়শী এবং ৫৮ বছরের এক ব্যক্তি। এছাড়া মণিরামপুর উপজেলার বাসিন্দা ৩৫ বছরের এক যুবক যশোর জেনারেল হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করতে দিয়ে পজেটিভ ফল পেয়েছেন।
শার্শা উপজেলার কোভিড-১৯ পজিটিভদের মধ্যে রয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আমজাদ হোসেন (৬০)। এছাড়া আছেন ৩৫, ৬৬, ৬২, ৬০, ৫৯, ৩০ বছর বয়সী সাত পুরুষ এবং ৫৮ ও ৪৩ বছর বয়সী দুই নারী।
অভয়নগর উপজেলার কোভিড-১৯ পজিটিভরা হলেন, গুয়াখোলা ছয় নম্বর ওয়ার্ডের ১৫ বছরের এক কিশোর, ৩০, ৪০, ৬২ ও ৮০ বছরের চার পুরুষ এবং ৭০ বছরের এক নারী।
ঝিকরগাছা উপজেলার কোভিড-১৯ পজেটিভদের মধ্যে রয়েছেন ২৭ বছরের এক পুলিশ সদস্য। এছাড়া ২৭, ৩৯, ২৭, ৫৭, ২৪ এবং ৩০ বছর বয়সী ছয় পুরুষ।
চৌগাছা উপজেলায় কোভিড-১৯ পজেটিভদের মধ্যে পাশের ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মিনহাজ আল হাসান (৩২) রয়েছেন; যিনি চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা দিয়েছিলেন। এছাড়া আছেন উপজেলা পরিষদ এলাকার ৩০ বছরের এক যুবক, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হিসাবরক্ষক জাকির হোসেন (৩৫)।
করোনায় আক্রান্ত বলে শনাক্ত হওয়া এই সব ব্যক্তিকে বাড়িতে রেখেই চিকিৎসা চলছে। তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন