রামপালে ফের ভারতীয় শ্রমিকদের বিক্ষোভ

আপডেট: 08:40:47 17/05/2020



img
img

খুলনা অফিস : বাড়ি ফেরাসহ বিভিন্ন দাবিতে আজ রোববার দ্বিতীয় বারের মতো বিক্ষোভ করে বাগেরহাটের রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্মরত ভারতীয় শ্রমিকরা।
বেলা ১২টার দিকে নিরাপত্তাকর্মীদের বাঁধা উপেক্ষা করে নির্মাণাধীন বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বের হয়ে পায়ে হেঁটে রওনা হন শ্রমিকরা। খুলনা-মোংলা মহাসড়কের বাবুর বাড়ির মোড়ে পৌঁছালে তাদের গতিরোধ করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। ওই মোড়েই তারা বিক্ষোভ করতে থাকেন। এক পর্যায়ে দুপুর দুইটার দিকে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ প্রশাসনের জেলা পর্যায়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে বুঝিয়ে সড়ক থেকে পাশে সরিয়ে দেন। সেখানে দফায় দফায়ে আলোচনা হয়।
এর আগে গত ৪ মে একই দাবিতে ভারতীয় কয়েকশ' শ্রমিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের সীমানা অতিক্রম করে রাস্তায় বের হয়ে হেঁটে বাড়ি যাওয়ার জন্য রওনা দেন। প্রশাসনের হস্তক্ষেপে তারা আবার বিদ্যুৎকেন্দ্রে ফিরে গিয়েছিলেন।
শ্রমিকরা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে তারা এই তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজ করছেন। করোনা পরিস্থিতিতে তারা ঠিকমতো পরিবার ও স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না। লকডাউনের কারণে তাদেরকে বাড়িতে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। ঠিকমতো খাবারও জুটছে না।
তারা বলছেন, এর আগেও তারা বাড়ি যাওয়ার জন্য রাস্তায় নেমেছিলেন। প্রশাসনের আশ্বাসে তারা বিদ্যুৎকেন্দ্রে ফিরে গিয়েছিলেন। কিন্তু আশ্বাস সত্ত্বেও কোনো ব্যবস্থা করেনি কর্তৃপক্ষ। এবার তারা যেকোনো মূল্যে বাড়িতে (ভারতে) যেতে চান বলে চিৎকার করতে থাকেন শ্রমিকরা।
রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপ-প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম বলেন, 'করোনা পরিস্থিতিতে সব ধরনের যাতায়াত ব্যবস্থা বন্ধ রয়েছে। আমরা শ্রমিকদের দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য ভারতীয় হাই কমিশনারের সাথে কথা বলেছি। তারাও চেষ্টা করছেন কর্মীদের ভারতে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু করোনার কারণে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতায় তা সম্ভব হচ্ছে না। এর মধ্যেই শ্রমিকরা পরিস্থিতি বিবেচনায় না নিয়ে বিক্ষোভ করছেন। তারা কারও কথা শুনছেন না।'
বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, 'শ্রমিকদের বিক্ষোভের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসেছি। শ্রমিকদের বুঝিয়ে সড়কের পাশে নেওয়া হয়েছে। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

আরও পড়ুন