লোহাগড়ায় রোগীকে ‘ভুল রক্ত’ দেওয়ায় ক্লিনিক ঘেরাও

আপডেট: 07:57:22 07/04/2021



img

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি : লোহাগড়া শহরের মোর্শেদা ক্লিনিকে এক রোগীর শরীরে ‘ও পজেটিভ’ রক্তের পরিবর্তে ‘বি পজেটিভ’ রক্ত পুশ করায় ওই ক্লিনিক মালিক জনরোষের শিকার হয়েছেন। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে ক্লিনিক মালিককে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে।
অভিযোগ ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে যে, উপজেলার ইতনা ইউনিয়নের পাংখারচর গ্রামের আরকান মোল্যা ওরফে ওলিয়ারের স্ত্রী আকলিমা বেগম খুশি (৪৫) জরায়ুতে টিউমার অপারেশন করার জন্য গত শুক্রবার (২ এপ্রিল) শহরের মোর্শেদা ক্লিনিকে ভর্তি হন। ভর্তির পর ডা. তাজরুল ইসলামকে (তাজ) দিয়ে অপারেশন সম্পন্ন করেন।
আকলিমা বেগম খুশির ভাই সোহেল রানা অভিযোগ করে বলেন, ‘সকালে এক দফা অপারেশনের পর সন্ধ্যার দিকে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ আবার ওই ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে ফের আমার বোনকে দ্বিতীয় বার অপারেশন করেন। দ্বিতীয় দফা অপারেশন শেষে রোগীর জরায়ুতে রক্তপাত শুরু হয়। এতে শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়। এ সময় ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ আমাকে জানায় রোগীর রক্তের প্রয়োজন।’
‘‘আমার বোনের রক্তের গ্রুপ ‘ও পজেটিভ’। কিন্তু ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ কোনো রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই আমার বোনের শরীরে চার ব্যাগ ‘বি পজেটিভ’ রক্ত পুশ করেন। এতে করে আমার বোনের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে।’’
মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে ওই রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হলে রোগীর আত্মীয়-স্বজনসহ এলাকাবাসী ওই ক্লিনিক ঘেরাও করে ক্লিনিকের মালিক জাকির হোসেনকে অবরুদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে লোহাগড়া থানার এসআই সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এদিকে, ওই রাতেই রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা সিটি মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মোর্শেদা ক্লিনিকের মালিক জাকির হোসেন সৃষ্ট ঘটনার কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি।
আকলিমা বেগম খুশির ভাই সোহেল রানা আরো বলেন, ‘আমার বোন সুস্থ্য হলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

আরও পড়ুন