শিশু ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি বারিক অধরা

আপডেট: 07:10:01 18/05/2021



img

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি: মণিরামপুরে শিশু (৬) ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে অভিযুক্ত বৃদ্ধ আব্দুল বারিক মামলা হওয়ার ২১ দিন পরেও অধরা রয়েছেন।
বিত্তশালী হওয়ায় নানা কৌশলে তিনি ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন বলে অভিযোগ বাদীপক্ষের।
অবশ্য পুলিশের দাবি, তাকে গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে।  
অভিযুক্ত আব্দুল বারিক উপজেলার হরিহরনগর গ্রামের গহর আলী সরদারের ছেলে। সম্পর্কে তিনি শিশুটির প্রতিবেশী দাদা।
অভিযোগ, গত ২৬ এপ্রিল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে কৌশলে শিশুটিকে নিজ ঘরে নিয়ে যান আব্দুল বারিক সরদার। এরপর তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। শিশুটি চিৎকার করলে বৃদ্ধ তার মুখ চেপে ধরেন। পরে শিশুটি তার মায়ের কাছে ঘটনার বর্ণনা দেয়।
জানাজানি হলে মণিরামপুর থানা পুলিশ সরেজমিন ঘটনাটি তদন্ত করে। এরপর ২৭ এপ্রিল রাতে শিশুটির মা ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ এনে বারিকের নামে মামলা করেন। ২৮ এপ্রিল আদালতে শিশুটি নির্যাতনের বর্ণনা দেয়।
ওই শিশুর বাবা বলেন, ‘মামলা হওয়ার পর থেকে বিষয়টি মিটিয়ে ফেলতে আব্দুল বারিকের লোকজন আমাদের চাপ দিচ্ছে। আমরা রাজি হইনি। আমার টাকা নেই, তাই দৌঁড়াতে পারছি না।’
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মণিরামপুর থানার এসআই সাহাবুল আলম বলেন, অভিযুক্ত আব্দুল বারিক ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। তিনি রাজশাহীর কোথাও আত্মগোপনে আছেন। সঠিক স্থান নির্ণয় করা যাচ্ছে না।
মণিরামপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান বলেন, আসামি পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন