সাংবাদিক সাহিত্যিক রাহাত খানের মৃত্যু

আপডেট: 03:25:05 29/08/2020



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : প্রবীণ সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক রাহাত খান আর নেই, তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।
পারিবারিক বন্ধু দেলোয়ার হাসান জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে রাজধানীর ইস্কাটনে নিজের বাসায় রাহাত খানের মৃত্যু হয়।
“দীর্ঘদিন ধরে তিনি হার্টের সমস্যা ও ডায়াবেটিসে ভুগছিলেন। এছাড়া বার্ধক্যজনিত আরো কিছু কারণে তিনি বেশ কিছুদিন ধরেই শয্যাশায়ী ছিলেন। দুই দিন ধরে তার কথাবার্তাও বন্ধ ছিল।”
দীর্ঘদিন দৈনিক ইত্তেফাকে কাজ করা রাহাত খান সর্বশেষ দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদের সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে করছিলেন।
‘অমল ধবল চাকরি’, ‘ছায়াদম্পতি’, ‘শহর’, ‘হে শূন্যতা’, ‘হে অনন্তের পাখি’, ‘মধ্য মাঠের খোলোয়াড়’, ‘এক প্রিয়দর্শিনী’, ‘মন্ত্রিসভার পতন’, ‘দুই নারী’, ‘কোলাহল’-এর মতো উপন্যাস ও গল্পগ্রন্থ তার হাত দিয়েই এসেছে।
সাহিত্যে অবদানের জন্য ১৯৯৬ সালে রাহাত খান একুশে পদক পান। তার আগে ১৯৭৩ সালে পান বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার।
রাহাত খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এক বার্তায় বলেছেন, “সাংবাদিকতার পাশাপাশি লেখক হিসেবে রাহাত খান মুক্তবুদ্ধির চর্চা ও সমাজ উন্নয়নে বিপুল অবদান রেখেছেন। তার মৃত্যু সাংবাদিকতা ও সাহিত্যের জগতে এক অপূরণীয় ক্ষতি।”
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বলে সরকারপ্রধানের দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে।
১৯৪০ সালের ১৯ ডিসেম্বর কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার পূর্ব জাওয়ার গ্রামের খান পরিবারের জন্মগ্রহণ করেন রাহাত খান।
তার সাংবাদিকতা শুরু ১৯৬৯ সালে দৈনিক সংবাদে। পরে যোগ দেন দৈনিক ইত্তেফাকে। সেখানে সহকারী সম্পাদক ও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন দীর্ঘদিন। ২০১৩ সালের জুলাই মাসে তার সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় দৈনিক বর্তমান। মৃত্যুর সময় তিনি দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদের সম্পাদক ছিলেন।
বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজী বলেন, বাংলা সাহিত্যে ছোটগল্প ও উপন্যাস দুই শাখাতেই অবদান রেখেছেন রাহাত খান।
“প্রথম জীবনে তিনি কিশোর-কিশোরীদের জন্য লিখেছেন ‘দিলুর গল্প’। সেই বইটি প্রকাশের পর তিনি তুমুল জনপ্রিয়তা পান। ১৯৭৪ সালে বাংলা একাডেমিতে যে সাহিত্য সম্মেলন হয়েছিল, আমার মনে পড়ে, তিনি সাধারণ সম্পাদকের ভূমিকা পালন করেছিলেন। পরে তিনি দৈনিক ইত্তেফাকে সাংবাদিকতার পাশাপাশি ছোটগল্প ও উপন্যাসেও নিয়মিত হন।”
আবিষ্কার প্রকাশনীর কর্ণধার ও প্রেসক্লাবের সদস্য দেলোয়ার হাসান জানান, শুক্রবার রাতে রাহাত খানের মরদেহ বারডেমের হিমঘরে রাখা হবে। শনিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে জানাজার পর মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।
সূত্র : বিডিনিউজ