সোমবার যশোরে যাদের করোনা শনাক্ত হলো

আপডেট: 10:40:43 10/08/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে সোমবার যে ৫০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে তার মধ্যে সদর উপজেলার ২৭ জন রয়েছেন।
এর বাইরে শার্শা উপজেলার চারজন, ঝিকরগাছার ছয়, কেশবপুরের সাত, চৌগাছার চার এবং মণিরামপুর উপজেলার দুইজন রয়েছেন।
স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, যশোর শহরসহ সদর উপজেলায় আক্রান্তরা হলেন, জেনারেল হাসপাতালের কর্মচারী ওবাইদুল ইসলাম (৫১), দিলীপ (৩৫) ও কামরুজ্জামান (৫০), নীলগঞ্জের আশুরা শারমিন (৪৫), সাইফুল (৫০), যশোর মেডিকেল কলেজের কর্মচারী রমা সাহা (৫০) ও খায়রুল ইসলাম (৪২), ঘোপের রাজু (৪০), সোহেলী (৩৩) ও ফারজানা সাথী (৩৪), খাজুরার আমিনুর (৫৮), শেখহাটির ইসহাক (৬০), ঘোপের সন্ন্যাসী দাস (৫৫), পুরাতন কসবার শাহানারা খাতুন (৪৫), হাসিবুর রহমান (১৭), লামিয়া (১৩) ও হাফিজুর রহমান (৫০), ধর্মতলার রহিমা খাতুন (৩৫), কারবালা এলাকার আব্দুল হক (৫৮), কাজীপাড়া এলাকার ইসমাইল হোসেন (৩৯), পুলিশ লাইনের সোহেল রানা (২৪), সিটি কলেজপাড়ার সোহেল (৩০), পালবাড়ি এলাকার মুস্তাফিজুর রহমান (৪৬), বিমানবন্দর সড়কের নুরুন্নাহার (৩৫), চাঁচড়া এলাকার শফিকুল ইসলাম (২৩), উপশহরের মনিরুজ্জামান (৫৫) এবং সদরে নমুনা দেওয়া ঝিকরগাছার সত্যজিৎ রায় (৩৫)।
চৌগাছা উপজেলায় আছেন পুরনো পোস্ট অফিস এলাকার শাহানা সালাম টুকু (৬০), আফজাল জামান (৩৮), সাদিপুরের মিনু মিয়া (৩৫) এবং মহেশপুরের শফিকুল ইসলাম (৪৩)। শেষোক্ত ব্যক্তি চৌগাছায় নমুনা দিয়েছিলেন।
কেশবপুর উপজেলায় আক্রান্ত হয়েছেন কড়িয়াখালির নারায়ণচন্দ্র দাস (৬০), পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের মনিরুজ্জামান (৩৯), বালিয়াডাঙ্গার আরতিরানি পাল (৩৮), আলতাপোলের আন্নারানি সেন (৫০)), উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মনোয়ারা (৫৮), প্রদীপকুমার বিশ্বাস (৫৬) এবং আবুল হোসেন (৪৫)।
অন্যান্যদের নাম-ঠিকানা এখনো জানা যায়নি। শনাক্তদের তালিকা স্থানীয় প্রশাসনের কাছে দেওয়া হয়েছে। বাড়ি লকডাউন, চিকিৎসাসহ অন্যান্য ব্যবস্থা গ্রহণ করছে সংশ্লিষ্টরা।

আরও পড়ুন