স্ত্রীর পরকীয়ার বলি দেবহাটার মনিরুল

আপডেট: 09:11:34 02/07/2020



img

দেবহাটা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : স্ত্রী ও তার প্রেমিক মিলে দেবহাটায় পরিকল্পিতভাবে খুন করে ইজিবাইকচালক মনিরুলকে।
আজ বৃহস্পতিবার মনিরুলের স্ত্রী রাবেয়া খাতুন ও তার প্রেমিক সাইদুর রহমান সাজু সাতক্ষীরার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিলাস মণ্ডলের আদালতে ১৬৪ ধারায় এই জবানবন্দি দেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
অভিযুক্ত সাজু কামটা গ্রামের ওহাব সরদারের ছেলে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে জবানবন্দিতে কী কারণে, কোথায়, কীভাবে মনিরুলকে খুন করা হয়, তার সবিস্তার বিবরণ দিয়েছেন এই দুই নর-নারী।
সূত্র জানায়, মনিরুলের স্ত্রী রাবেয়ার সঙ্গে রাজুর অবৈধ সম্পর্ক ছিল। তারা পরিকল্পনা করে মনিরুলকে হত্যা করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দেবহাটা থানার ইনসপেক্টর (তদন্ত) উজ্জ্বলকুমার মৈত্র জানান, রাবেয়া খাতুন ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, মনিরুলের বন্ধু রাজু তাদের বাড়িতে আসা-যাওয়া করতেন। সেই সূত্রে রাবেয়ার সঙ্গে তার সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাদের মধ্যে সম্পর্ক গভীর হয়ে উঠলে রাবেয়াকে বিয়ের প্রস্তাব দেন রাজু। কিন্তু স্বামী থাকায় রাবেয়া বিয়ে করা অসম্ভব বলে জানান।
এমন অবস্থায় সাংসারিক বিরোধে গত ২৫ জুন ভোরে মনিরুল স্ত্রী রাবেয়াকে মারপিট কনে। ওই দিন সকাল দশটার দিকে রাজুর সঙ্গে দেখা করতে রাবেয়া গাজীরহাট বাজারে যান। রাজুকে তিনি মারপিটের কথাও জানান। এতে রাজু প্রচণ্ড রেগে গিয়ে ওই দিনই মনিরুলকে হত্যা করার সংকল্প করে। পরে রাজু-রাবেয়া পরিকল্পনা করে সন্ধ্যায় ফোনের মাধ্যমে মনিরুলের অবস্থান নিশ্চিত হন এবং সুযোগমতো তাকে খুন করেন।
তদন্তকারী কর্মকর্তা উজ্জ্বল মৈত্র আরো জানান, সাইদুর রহমান রাজু তার ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে বলেছেন, রমজান নামে একজনকে সঙ্গে নিয়ে তিনি দেবহাটায় আসেন। রমজান যাত্রী সেজে মনিরুলের ইজিবাইকে যান আর রাজু দড়ি কিনে মোটরসাইকেলে দেবহাটায় ‘বৌদির দোকান’-এর সামনে রাস্তায় অপেক্ষা করতে থাকেন। পরে তারা এক হয়ে মনিরুলের ইজিবাইকে সখীপুরের দিকে যাওয়ার সময় একটি চাতালের কাছে এসে পেছন থেকে দড়ির ফাঁস দিয়ে দুইজনে মিলে জোরে টান দেন। এতে মনিরুল শ্বাস বন্ধ হয়ে মারা যান। তখন দুই খুনি ইজিবাইক থেকে নেমে সখীপুরের দিকে পায়ে হেঁটে রওনা হন। পরে ব্যাটারিচালিত একটি ভ্যান পেয়ে তাতে চেপে সখীপুরে চলে যান। আর মনিরুলের লাশ রাস্তার পাশে ফেলে গা-ঢাকা দেন রমজান।
পুলিশ কর্মকর্তা উজ্জ্বল আরো জানান, মামলার তদন্ত এখনো চলছে। যতটুকু ক্লু উদঘাটন করা হয়েছে, তা থেকে প্রতীয়মান হয়, হত্যাটি প্রেমঘটিত কারণে পূর্বপরিকল্পিত।
গত ২৬ জুন ভোরে দেবহাটা উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামের ইসমাইল গাজীর ছেলে ইজিবাইক চালক মনিরুল ইসলাম (৩৩)-এর লাশ উদ্ধার করে দেবহাটা থানা পুলিশ।

আরও পড়ুন