হৃদয় ঠিক থাকলেও ভেঙেছে সস্তি!

আপডেট: 12:36:37 26/07/2020



img

নড়াইল প্রতিনিধি : জেলার কালিয়ায় বেআইনিভাবে মেসার্স সস্তি এন্টারপ্রাইজ ব্রিক, হাওয়া জিকজ্যাক, চিমনিসহ যাবতীয় মালামাল ভাংচুরের প্রতিবাদ, মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছে।
আজ রোববার বেলা সাড়ে ১০টায় নড়াইলের কালিয়া উপজেলার বড়নাল ইলিয়াছাবাদ ইউনিয়নের বিলদুড়িয়ায় গ্রামে এ মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলন হয়।
সস্তি ব্রিকসের মালিক ফজিলাতুন্নেছা জানান, তার স্বামী স্বাস্থ্য বিভাগে চাকরি করতেন। তিনি মারা গেলে পেনশনের টাকায় অনেক কষ্ট করে এ ইটভাটা তৈরি করেছেন। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ০২.০১.২০১৮ তারিখে সংস্কার করে জিকজ্যাক ভাটায় রুপান্তর এবং ১৫.১০.২০১৮ তারিখে পরিবেশ গত ছাড়পত্রের জন্য যশোর জেলা কার্যালয়ের আবেদন করা হলে তা গৃহিত হয়। কিন্তু সরকারি প্রক্রিয়াগত জটিলতার কারণে ইটভাটা অনুকূলে কোনও ছাড়পত্র এই দীর্ঘ সময়েও হস্তান্তর করা হয়নি। অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে হঠাৎ এই অভিযান।
বড়নাল ইলিয়াছাবাদ ইউনিয়নের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শেখ গোলাম মোস্তফা বলেন, অত্র এলাকায় এটি ছাড়া বৈধ কোনও ভাটা নেই। এই ভাটার কারণে এলাকার কয়েক গ্রামের মানুষ উপকৃত হন। নোটিশ ছাড়া এটি ভাঙার নিন্দা জানান তিনি।
ভাটা ভাংচুরের সময় কাগজপত্র দেখাতে গেলে কর্মকর্তারা বলেন, কাগজপত্র খালে ভিজিয়ে রাখো।
বিলদুড়িয়া গ্রামের ঈমান শেখ বলেন ভাটা ভাঙ্গা চলাকালীন সময়ে ১২/১৪ বার কর্মকর্তাদের ফোন বাজছিল কিন্ত ফোন রিসিভ না করে কেটে দিচ্ছিল।
বড়নাল ইলিয়াছাবাদ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তর যশোর তাদের ওয়েব সাইডে যে স্টাটাস দিছে তাতে লিখেছে মেসার্স হৃদয় ব্রিকস নামে ইটভাটাটির চিমনি ও কিলন সম্পূর্ণ ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্ত বাস্তবে আমাদের মেসার্স সস্তি এন্টারপ্রাইজ ব্রিক, হাওয়া জিকজ্যাকের চিমনিসহ যাবতীয় মালামাল ভাংচুর করা হয়েছে।
উল্লেখ্য ২২.০৭.২০২০ তারিখে পরিবেশ অধিদপ্তর, খুলনা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ জিয়াউর রহমান ও পরিবেশ অধিদপ্তর, যশোর জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক জনাব মোঃ কামরুজ্জামান সরকারের যৌথ অভিযানে নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার বড়নাল ইউনিয়নের বিলদুড়িয়া গ্রামের মেসার্স সস্তি ব্রিকের যাবতীয় মালামাল ভাংচুর করা হয়।

আরও পড়ুন