১০০ কোটি টাকার জালিয়াতি, ‘মূল হোতা’ আটক

আপডেট: 07:26:51 13/09/2020



img

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ায় জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি করে জমি রেজিস্ট্রির ঘটনায় মূল হোতা হিসেবে কথিত এবং জমি কিনতে বিনিয়োগকারী মহিবুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।
গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত জানান, আগামীকাল প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এবিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।
আটককৃত মহিবুল ইসলাম কুষ্টিয়া শহরের বড়বাজার এলাকার হাজী মোহাম্মদ আলীর ছেলে এবং ‘বেঙ্গল হার্ডওয়্যার’ নামে একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের মালিক।
কুষ্টিয়া শহরের এন এস রোডের বাসিন্দা এম এম এ ওয়াদুদের প্রায় ১০০ কোটি টাকা মূল্যের সম্পত্তি একটি চক্র জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি করে রেজিস্ট্রির ঘটনা যমুনা টিভির ইনভেস্টিগেশন থ্রি সিক্সটি ডিগ্রিতে প্রচার হলে কুষ্টিয়া প্রশাসন নড়েচড়ে বসে। এই ঘটনায় ভুক্তভোগী ১৮ জনের নাম উল্লেখসহ আরো ১০-১২ অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ এই চক্রকে ধরতে অভিযান চালিয়ে জমি কেনা-বেচায় জড়িত ও জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতির ঘটনায় শহর যুবলীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আহ্বায়ক আশরাফুজ্জামান সুজনসহ ছয়জনকে আটক করে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আকিবুল ইসলাম আটক পাঁচজনের পাঁচ দিন করে রিমান্ডে দেওয়ার আবেদন করেন আদালতে। শুনানি শেষে আদালত মিন্টো খন্দকার, তার দুই বোন হোসনেয়ারা খাতুন ও ছানোয়ারা খাতুনের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। অপর দুই আসামি জমির ক্রেতা মহিবুল ইসলাম ও প্রতারক মিন্টো খন্দকারের ভাগ্নে মিলন হোসেন পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এছাড়াও আটক হওয়া শহর যুবলীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আহ্বায়ক আশরাফুজ্জামান সুজনের রিমান্ড আবেদন করা হবে বলেও জানান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন