২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ৬৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৮২

আপডেট: 03:53:45 30/06/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরো ৬৪ জন মারা গেছেন। একদিনে এটিই সর্বাধিক মৃত্যুর ঘটনা। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো এক হাজার ৮৪৭-তে।
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন তিন হাজার ৬৮২ জন। দেশে এখন পর্যন্ত সব মিলিয়ে করোনা শনাক্ত হয়েছেন এক লাখ ৪৫ হাজার ৪৮৩ জন।
গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৮৪৪ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হলেন ৫৯ হাজার ৬২৪ জন।
মঙ্গলবার বেলা আড়াইটায় কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনের আয়োজন করা হয়। সেখানে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।
অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮ হাজার ৮৬৩টি নমুনা সংগ্রহ এবং ১৮ হাজার ৪২৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত সাত লাখ ৬৬ হাজার ৪০৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ।শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪০ দশমিক ৯৮ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৭ শতাংশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৫২ জন পুরুষ এবং ১২ জন নারী। বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায় যায়, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ১১, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১৬, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ছয়, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২১, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে সাতজন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩১ জন ঢাকা বিভাগের, ১২ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, সাতজন রাজশাহী বিভাগের, সাতজন খুলনা বিভাগের, দুইজন সিলেট বিভাগের, তিনজন বরিশাল বিভাগের এবং দুইজন ময়মনসিংহ বিভাগের। তাদের মধ্যে হাসপাতালে ৫১ জন এবং বাসায় ১৩ জন মারা গেছেন।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ৪৪৯ জনকে। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৪ হাজার ১৪৫ জন।
আইসোলেশন থেকে ২৪ ঘণ্টায় ৫৪৪ জন এবং এখন পর্যন্ত ১১ হাজার ৪৪০ জন ছাড় পেয়েছেন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশন করা হয়েছে ২৬ হাজার ৫৮৭ জনকে।
গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম মিলে কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে দুই হাজার ৫৪২ জনকে। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে তিন লাখ ৬৩ হাজার ৮৬৬ জনকে। কোয়ারেন্টিন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই হাজার ৮৩৪ জন এবং এখন পর্যন্ত মোট দুই লাখ ৯৯ হাজার ১৯৯ জন ছাড় পেয়েছেন। বর্তমানে মোট কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৪ হাজার ৬৬৭ জন।

আরও পড়ুন