৭ উইকেট নেই জিম্বাবুয়ের

আপডেট: 10:36:37 06/03/2020



img

সুবর্ণভূমি ডেস্ক : বৃষ্টির কারণে ৪৩ ওভারে নেমে এসেছে সিলেটের তৃতীয় ওয়ানডে। বাংলাদেশ ৩২২ করলেও ডাকওয়ার্থ-লুইস মেথডে জিম্বাবুয়ের লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে ৩৪২। কঠিন লক্ষ্যে সফরকারীদের স্কোর ৩১ ওভারে ৭ উইকেটে ১৭৪।
প্রথম স্পেলের দ্বিতীয় ওভারে পেয়েছিলেন প্রথম উইকেট। দ্বিতীয় স্পেলের দ্বিতীয় ওভারেও উইকেট উদযাপন করলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার দ্বিতীয় শিকার ওয়েসলি মাদেভেরে।
চাপের মধ্যে বেশ ভালোই খেলছিলেন মাদেভেরে। হাফসেঞ্চুরির সম্ভাবনাও উঁকি দিচ্ছিলো তার ব্যাটিংয়ে। কিন্তু হলো না, সাইফউদ্দিনের বল তার ব্যাটের ওপরের দিকে লেগে উঠে গেলে পয়েন্টে দাঁড়ানো মেহেদী হাসান মিরাজ নেন সহজ ক্যাচ। মাদেভেরেকে ‍বিদায় নিতে হয় ৪২ বলে ৪২ রানে।
তার আউটের খানিক পরই রান আউট হয়ে ফিরেছেন রিচমন্ড মুটুমবামি (০)। জিম্বাবুয়ের বিপদ আরও বাড়ে টিনোটেন্ডা মুতোমবোজির (৭) বিদায়ে। তাকে আউট করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান।

এবার তাইজুলের আঘাত
এবার তাইজুল ইসলামের উইকেট উদযাপন। বাঁহাতি স্পিনার নিজের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে ফিরিয়েছেন জিম্বাবুয়ে ওপেনার রেগিস চাকাভাকে।
ওপেনিংয়ে নেমে একপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন চাকাভা। মন্থর ব্যাটিংয়ে প্রতিরোধ গড়লেও বেশিদূর যেতে পারেননি। তাইজুলের বলে বোল্ড হয়ে ফিরেছেন প্যাভিলিয়নে। যাওয়ার আগে ৪৫ বলে মাত্র এক বাউন্ডারিতে করেন ৩৪ রান। চাকাভার বিদায়ে জিম্বাবুয়ে হারায় চতুর্থ উইকেট।

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় বলেই আফিফের উইকেট
লিটন-তামিমের দাপটে ব্যাটিংয়ে খুব বেশি কিছু করার সুযোগ হয়নি আফিফ হোসেনের। তবে বোলিং দিয়ে অভিষেক রাঙানোর সুযোগ ছিল তার সামনে। সেই সুযোগটা কাজে লাগালেন মাত্র দ্বিতীয় বলে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথমবার বল হাতে নেওয়ার দ্বিতীয় ডেলিভারিতে বোল্ড করে ফিরিয়েছেন শন উইলিয়ামসকে।
কঠিন লক্ষ্য জিম্বাবুয়ের জন্য আরও কঠিন করে দিলেন আফিফ। আফ্রিকান দলটির অধিনায়ক উইলিয়ামসকে কোনও সুযোগই দেননি খেলার। বোল্ড করে ফিরিয়েছেন ৩০ রানে। তাতে জিম্বাবুয়ে হারায় তৃতীয় উইকেট।

সাইফউদ্দিন এনে দিলেন দ্বিতীয় উইকেট
প্রথম ওয়ানডে খেললেও দ্বিতীয়টিতে ছিলেন বাইরে। সিরিজের শেষ ম্যাচে ফিরে সাইফউদ্দিন তার সামর্থ্য দেখালেন। নিজেদের দ্বিতীয় ওভারেই এই পেসার তুলে নিয়েছেন উইকেট।
সাইফউদ্দিন পেয়েছেন ব্রেন্ডন টেলরের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটি। এবারের বাংলাদেশের সফরটা ভুলে যেতে চাইবেন আফ্রিকান দেশটির সাবেক অধিনায়ক। আগের দুই ম্যাচের ধারাবাহিকতায় এবারও ব্যর্থ তিনি। সাইফউদ্দিনের বলে শর্ট মিড-উইকেটে মোহাম্মদ মিঠুনের হাতে ধরা পড়ার আগে ১৫ বলে করেন ১৪ রান। তার বিদায়ে ২৮ রানে জিম্বাবুয়ে হারায় দ্বিতীয় উইকেট।

শুরুতেই মাশরাফির উইকেট
অধিনায়ক মাশরাফি-অধ্যায় শেষ হচ্ছে আজ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচটি তাই তার জন্য ‘বিশেষ’। বোলিংয়ে এসেই উপলক্ষটা রাঙিয়ে নিলেন মাশরাফি। শুরুতেই টিনাশে কুমুনুকামওয়ে ফিরিয়ে পেয়েছেন প্রথম উইকেট।
কঠিন লক্ষ্যে নেমে শুরুতেই বিপদে জিম্বাবুয়ে। মাশরাফির আউট সুইং কুমুনুকামওয়ের ব্যাট ছুঁয়ে উইকেটকিপার লিটন দাসের গ্লাভসে জমা পড়লে সফরকারীরা হারায় প্রথম উইকেট। আউট হওয়ার আগে জিম্বাবুয়েন ওপেনার করেন ৪ রান।

৪৩ ওভারেই বাংলাদেশের রান ৩২২
ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ইনিংস খেললেন লিটন দাস। তামিম ইকবাল পেলেন টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। দুজন মিলে উদ্বোধনী তো বটেই, গড়লেন ওয়ানডেতে যেকোনও উইকেটে দেশের সর্বোচ্চ রানের জুটি। রেকর্ডময় ম্যাচে হলো রান উৎসব। তাই বৃষ্টির কারণে ৪৩ ওভারে নেমে আসা ম্যাচেও বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৩২২। ডাকওয়ার্থ-লুইসে জিম্বাবুয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ হয়েছে অবশ্য ৪৩ ওভারে ৩৪২।
সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের তৃতীয় ওয়ানডেটি অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফি মুর্তজার শেষ ম্যাচ। তার নেতৃত্বের শেষটা জয়ে রাঙানো স্বপ্ন দলের সব খেলোয়াড়ের। তবে লিটন-তামিম মিলে যেটা করলেন, সেটা হয়তো স্বপ্নেও ভাবেনি কেউই। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি করে লিটন খেললেন ১৭৬ রানের ঝলমলে ইনিংস। আর তামিম? তাকে তো আউটই করতে পারেননি জিম্বাবুইয়ান বোলাররা। টানা দ্বিতীয় শতক পূরণ করে বাঁহাতি ওপেনার অপরাজিত থাকেন ১২৮ রানে। (বাংলা ট্রিবিউন)