‘আমিনুর জেলে, আমার স্বামীর আত্মা শান্তি পাচ্ছে’

আপডেট: 08:25:25 11/02/2020



img

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে প্রতারণায় অভিযুক্ত বহুল আলোচিত আনোয়ার বেগমের কথিত প্রধান সহযোগী আমিনুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তিনি দুটি মামলায় এক বছর করে সাজাপ্রাপ্ত। এছাড়া আরো কয়েকটি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি।
কোতয়ালী থানার এএসআই বিএম সুমন হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে শহরের নিরালাপট্টি থেকে তাকে গ্রেফতার করেন। আমিনুর রহমান নিরালাপট্টি এলাকার শিল্পী সুইটের মেয়েজামাই এবং খলিলুর রহমানের ছেলে।
এএসআই বিএম সুমন হোসেন সুবর্ণভূমিকে বলেন, আমিনুর রহমান ছয়টি মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি। যশোর সদর উপজেলার সুজলপুর গ্রামের সুফিয়া খাতুন নামে এক নারী এই আমিনুর রহমানের কাছে ১৩ লাখ টাকা পাবেন। সুফিয়া বেগমের দায়ের করা মামলায় (এসসি ৬৫/১৪ ও ৩৬/১৪ ) আদালত তাকে এক বছর করে দুই বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন। এছাড়া রাজধানীর ধানমন্ডি থানার সিআর ৪৪৫/১৯, রমনা থানার সিআর ১৪৫৩/১৬, যশোরের পিএনজিআর ৫৪৩/১৩ ও সিআর ১০০৫/১৯-সহ মোট ছয়টি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি তিনি।
আজ তাকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।
ইসলামী ব্যাংকের সাবেক ম্যানেজার মৃত শহিদুল ইসলামের স্ত্রী সুফিয়া বেগম বলেন, ‘‘যশোরের বহুল আলোচিত ‘প্রতারক’ আনোয়ারা বেগম আমার স্বামীর কাছ থেকে প্রতারণা করে এক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। আনোয়ারার প্রধান সহযোগী আমিনুর রহমানও একজন বড় মাপের প্রতারক ও ধোঁকাবাজ। আমার স্বামী বেঁচে থাকা অবস্থায় সে ১৩ লাখ টাকা নিয়েছিল।’’
তিনি বলেন, ‘এই আনোয়ারা বেগম ও আমিনুরের প্রতারণার কারণে আমার স্বামী হার্ট অ্যাটাকে মারা যায়। টাকা উদ্ধারের জন্য আমি আমিনুরের পেছন পেছন ঘুরেছি। হয়রান হয়ে শেষে মামলা করি। টাকা ফেরত না পেলেও আমিনুর জেলে যাওয়ায় আমি খুশি। আমার মৃত স্বামী শহিদুলের আত্মা শান্তি পাচ্ছে।’

আরও পড়ুন