‘কাদিয়ানিদের লাশ তুলে নদীতে ভাসিয়ে দিতে হবে’

আপডেট: 09:55:41 15/02/2020



img
img

স্টাফ রিপোর্টার : কাদিয়ানিদের রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণার দাবি করেছেন হেফাজতে ইসলামের আমির ও বাংলাদেশ কওমি বোর্ডের সভাপতি আল্লামা শাহ আহমদ শফী। এ দাবিতে ঢাকায় বড় ধরনের সমাবেশও ঘটাতে চান তিনি।
শনিবার বিকেলে যশোরে দস্তারবন্দি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি আরো বলেন, কাদিয়ানিরা মুসলিম না। যারা তাদের মুসলিম মনে করে, তারাও মুসলিম না। তারা কাফের। কাদিয়ানিদের মসজিদকে মসজিদ বলা যাবে না, ওটা মন্দির। তারা বাংলাদেশে মুসলিম হিসেবে নয়, অন্য ধর্মাবলম্বীদের মতো থাকতে পারবে।
যশোর শহরের আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়া দড়াটানা মাদরাসার আয়োজনে দাওরাহে হাদিস- টাইটেল ডিগ্রি অর্জনকারীদের দস্তারবন্দি ইসলামি মহাসম্মেলনে তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাতে দুইদিন ধরে এই অনুষ্ঠান হয়।
তিনি আরো বলেন, ‘‘এই বয়সে অসুস্থ শরীরে আমি সারাদেশ সফর করে বেড়াচ্ছি। এর একটি সৎ উদ্দেশ্য আছে। তা হলো কাদিয়ানিদের অমুসলিম ঘোষণার দাবি আদায়। পর্যায়ক্রমে দেশের সকল বিভাগে সফর করা হবে। সবশেষে ঢাকায় লোকজন নিয়ে হাজির হবো। ঢাকার সমাবেশ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলবো, ‘তুমিও তো মুসলমান, আমরাও মুসলমান। তোমাকে জানাতে এসেছি, গোলাম আহমেদ কাদিয়ানির অনুসারীরা মুসলিম নয়। যারা এদের মুসলিম ভাবে বা মুসলিম বলে সন্দেহ প্রকাশ করে তারাও মুসলিম নয়। তারা কাফির। অতএব তাদেরকে অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে। এদের সাথে আত্মীয়তা করা যাবে না। মুসলিমের কবরস্থানে তাদের দাফন হয়ে থাকলে লাশ তুলে নদীতে ভাসিয়ে দিতে হবে।’’
আল্লামা আহমদ শফী আরো বলেন, আমাদের নবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) এর পর কোনো নবী আসবে না, এটা চিরন্তন সত্য। তিনিই শেষ নবী। অথচ কাদিয়ানিরা আমাদের নবীকে শেষ নবী মানে না। গোলাম আহমেদ কাদিয়ানি নিজেকে শেষ নবী দাবি করে। ফলে তারা ও তাদের অনুসারীরা কাফির।
এসময় তিনি উপস্থিত মুসল্লিদের কাছে জানতে চান, ‘দাবি আদায়ে আপনারা প্রয়োজনে শহীদ হতে রাজি আছেন কিনা?’ উপস্থিত লোকেরা হাত উঁচু করে তাকে সমর্থন জানান।
দড়াটানা মাদরাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কওমি বোর্ডের সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান হাফেজি, মাওলানা মোস্তাক আহমেদ, মাওলানা নাসিরুল্লাহ প্রমুখ।
শেষ দিনের অনুষ্ঠানে দড়াটানা মাদরাসা থেকে গত ২৫ বছরে দাওরাহে হাদিস- টাইটেল ডিগ্রি অর্জনকারী ৩৫০ জনকে দস্তারবন্দি (পাগড়ি) প্রদান করেন আল্লামা আহমদ শফী।
অনুষ্ঠানের আগে বেলা একটার দিকে একটি হেলিকপ্টারয়োগে যশোর আসেন তিনি। হেলিকপ্টারটি যশোর শামসুল হুদা স্টেডিয়ামে অবতরণ করে।

আরও পড়ুন