খুলনার পাঁচ হাসপাতালে ১৮ জনের মৃত্যু

আপডেট: 04:11:02 26/07/2021



img

জিয়াউস সাদাত, খুলনা: খুলনার পাঁচ হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সকাল সাড়ে আটটা থেকে সোমবার (২৬ জুলাই) সকাল সাড়ে আটটা পর্যন্ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।
এর মধ্যে খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে করোনা শনাক্ত চার ও উপসর্গ নিয়ে চার- মোট আটজন, শহীদ শেখ আবু নাসের হাসপাতালের করোনা ইউনিটে তিনজন, খুলনা জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজন, বেসরকারি গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চারজন এবং সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।
খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের ফোকালপারসন ডা. সুহাসরঞ্জন হালদার জানান, এখানে গত ২৪ ঘণ্টায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে; এর মধ্যে চারজন করোনা উপসর্গে ভুগছিলেন। করোনায় মৃতরা হলেন- নগরীর রায়পাড়া এলাকার ফজলুর রহমান (৭০), টুটপাড়ার সাহিদা বেগম (৬২), ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরের বজলুল হুদা (৬৫) এবং একই এলাকার পাশপাতিলা এলাকার আব্দুর রহমান (৪৬)। এ হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১০৯ জন। যার মধ্যে রেড জোনে ৪২, ইয়েলো জোনে ৩৪ এবং আইসিইউতে ২০ জন।
শহীদ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. প্রকাশ দেবনাথ জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন- খুলনার দৌলতপুরের পাবলা এলাকার তাহমিনা বেগম (৮৪), বাগেরহাট জেলার ফকিরহাটের গাউস শেখ (৬৫) এবং নড়াইল জেলার কালিয়ার কলাগাতী এলাকার নয়ন ঘোষ (৩৫)। হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন ৩৬ জন। তার মধ্যে আইসিইউতে রয়েছে দশজন।
খুলনা জেনারেল হাসপাতালের ৮০ শয্যার করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তি হলেন- নগরীর হাজী মহসিন রোডের আবুল বাশার ফারাজী (৫৫)। চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৩ জন, তার মধ্যে ১৭ জন পুরুষ ও ১৬ জন মহিলা।
সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘন্টায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত বক্তিরা হলেন- খুলনার ১৭৮, বাগমারা মেইন রোডের শিখারানি রায় (৫৫) ও ডুমুরিয়ার থুকড়া শাহপুরের আফিয়া খানম (৩৫)। বেসরকারি এ হাসপাতালটির ৯০ শয্যার করোনা ইউনিটে ৬৯ জন ভর্তি রয়েছেন।
এছাড়া গাজী মেডিকেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন- ডুমুরিয়ার পলাশ সরকার (৩৬), নগরীর টুটপাড়ার তারিকুল ইসলাম (৬৩),ধর্মসভার স্বপ্না বেগম (৪২) এবং দৌলতপুরের মাহবুবা বেগম (৪২)।
এদিকে, রোববার রাতে খুমেক আরটি-পিসিআর ল্যাবে ৩৭৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। যার মধ্যে খুলনার ৩৪০টি নমুনা ছিল। ফলাফলে দেখা যায়, ১১৪ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে খুলনার ১১২, মাদারীপুর ও দিনাজপুরের একজন করে রয়েছেন।

আরও পড়ুন