পুলিশ সেজে টাকা গ্রহণ, গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব!

আপডেট: 07:45:00 11/06/2021



img

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: স্বামীকে মিথ্যা মামলায় হয়রানি করে পুলিশ সেজে দফায় দফায় ৪৭ হাজার টাকা গ্রহণ, দিনে-রাতে বাসায় গিয়ে কুপ্রস্তাবে ব্যর্থ হয়ে হুমকি-ধামকি দেওয়ার অভিযোগ করেছেন লিপিকা খাতুন নামে এক গৃহবধূ।
শুক্রবার সকালে কলারোয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এইসব অভিযোগ করেন তিনি।  
লিপিকা খাতুন বলেন, কলারোয়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড শ্রীপতিপুর এলাকার নূর ইসলাম ধাবকের ছেলে মারুফ হোসেন আমার স্বামী আলমগীর হোসেনের পূর্বপরিচিত। সে এলাকায় দালাল ও বাটপার হিসেবে পরিচিত। কিছুদিন আগে একটি মোটরসাইকেল ছিনতাই চক্রের আসামি গ্রেফতার হয়। ছিনতাই ঘটনার সাথে আমার স্বামীও জড়িত- এমন বক্তব্য দিয়ে সিআইডি পুলিশ পরিচয়ে তারা খুঁজতে থাকে। ভয়ে আমার স্বামী পালিয়ে যান।  
এই সুযোগে আর হয়রানি করা হবে না মর্মে দফায় দফায় আমার কাছ থেকে সে ৪৭ হাজার টাকা নেয়। স্বামী বাড়িতে না থাকায় সে আমার সাথে রাত্রিযাপন করার কুপ্রস্তাব দেয় এবং উত্যক্ত করতে থাকে। এরপরও ছেলেপুলেদের ফেনসিডিল খাওয়ার টাকা দিতে হবে বলে প্রায়ই ২ হাজার করে টাকা দাবি করে। টাকা দিতে দেরি হলে দেখে নেওয়ার হুমকি-ধামকি দেয়।
তিনি বলেন, তার অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে আজ সংবাদ সম্মেলন করতে বাধ্য হয়েছি। আমার স্বামী দোষী হলে সাজা পাক; কিন্তু এই বদমাশের কাছ থেকে বাঁচতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।  
লিপিকা কলারোয়ার জালালাবাদ ইউনিয়নের শংকরপুর গ্রামের আলমগীর সরদারের স্ত্রী।  

আরও পড়ুন